৯ই মে, ২০১৯ ইং, বৃহস্পতিবার, ২৬শে বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ



হুইলচেয়ার ক্রিকেট ভারতকে হারিয়ে সেরা বাংলাদেশ


প্রকাশিত :২৯.০৪.২০১৯, ২:১২ অপরাহ্ণ

হুইলচেয়ার ক্রিকেট ভারতকে হারিয়ে সেরা বাংলাদেশ

কলকাতায় ত্রিদেশীয় হুইলচেয়ার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট সিরিজে ভারতকে ৫ রানে হারিয়ে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ফলে দিল্লি হারের প্রতিশোধ আর নেওয়া হলো না স্বাগতিকদের।

সকালে টসভাগ্য ভারতের পক্ষেই যায়। অধিনায়ক সোমজিৎ টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠান। শুরুটা ভালো হলেও শেষের দিকে কম রান ওঠায় ২০ ওভারে আট উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রান করে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের জয়ের নায়ক বলতে হবে শফিককে, যিনি ২২ বলে ৩৪ রান করার পাশাপাশি নিয়েছেন পাঁচটি উইকেটও। এ নৈপুণ্যের পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি, হয়েছেন ম্যান অব দ্য ফাইনাল।

বাংলাদেশের দুই ওপেনার শরীফুল ও শফিকের শুরুটা ভালোই ছিল। ৭ দশমিক ৩ ওভারে ৫২ রানের জুটি গড়েন দুজন।

ভারতের পক্ষে প্রথম ব্রেক থ্রু আনেন অলরাউন্ডার আনামুল। ২২ বলে ৩৪ করা শফিককে বোল্ড করেন তিনি। একই ওভারে রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফেরেন তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা আল-আমিন। মূলত এক ওভারে ওই দুই উইকেট পতনের পরই বাংলাদেশের রানের চাকা গতি হারিয়ে ফেলে। ১০০ পূর্ণ হয় ১৫তম ওভারে। ৪৭ রান করে আউট হওয়া বাঁহাতি ব্যাটসম্যান আশরাফুল বাদে কেউ ভালো স্কোর করতে পারেননি। শেষ পাঁচ ওভারে ৩৩ রান করলে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৭।
বোলিংয়েও বেশ ভালো শুরু করে বাংলাদেশ। পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে অনেকটা ধুঁকতে থাকে ভারত। শফিক ভারতের দুই ওপেনার সোমজিৎ ও সাগেনকে ফেরান। এরপর জুলহাসের বলে তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা রোহিত আউট হলে কিছু সময়ের জন্য ম্যাচ বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রণে আসে। ১০ ওভারে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় চার উইকেটে ৭৪। ১১তম ওভারে ৭৯ রানের মাথায় আরো একটি উইকেটের পতন হলে সেখান থেকে ভারতকে টেনে তোলেন আনামুল ও ভীর সিং। ১৭তম ওভারে ভীর সিংকে আউট করে শফিক ম্যাচে উত্তেজনা ফিরিয়ে আনেন। একই ওভারে তিনি দুর্দান্ত ক্যাচ নিলে ফলাফল পাল্টে যেতে পারে বলেও বলতে শুরু করেন ধারাভাষ্যকাররা। ওই ওভারে আরেক ব্যাটসম্যান বোল্ড হলে সব হিসাবই পাল্টে যায়। ১৯তম ওভারে ১৯ বলে ২৫ রান করা আনামুলকে বাঁহাতি বোলার আশরাফুল বোল্ড আউট করলে বাংলাদেশ দলে উল্লাস ছড়িয়ে পড়ে। পরের বলেই আশরাফুল শেষ উইকেট তুলে নিলে বাংলাদেশ ম্যাচ জেতে ৫ রানে। এর পরপরই সাউন্ড বক্সে বেজে ওঠে ‘সাবাস বাংলাদেশ’ গানটি।

এর আগে সকালে দুই দলের জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে খেলা শুরু হয়। জাতীয় সংগীত শেষে ভারতীয় খেলোয়াড় গুলশান হুইলচেয়ারে ভর করে যে শারীরিক কসরত দেখান, তাতে সবাই মুগ্ধ হয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon