১৩ই আগস্ট, ২০১৮ ইং, সোমবার, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



বদলী হয়ে চলে যাচ্ছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন


প্রকাশিত :০১.০৮.২০১৮, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

বদলী হয়ে চলে যাচ্ছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন


“দিন যায় কথা থাকে ” সুবির নন্দী কন্ঠে বিখ্যাত এই গানের শুরে শুর মিলিয়ে বলা যায় প্রশাসনেও – একজন যায়, একজন আসে । কিন্তু ব্যতিক্রম হিসাবে থেকে যায় তার কর্মকান্ড । তেমনই একজন কর্মচঞ্চল ও কাজ পাগল মানুষ হলেন মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার বর্তমান অতিরিক্ত পুলিশ অফিসার । তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে যোগদান করার পরই পাল্টে যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিত্র । তার কাছে গিয়ে নিরুপায় হয়ে ফিরে এসেছেন এমন অভিযোগ কারী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিরল । মানুষের পারিবারিক, সামাজিক থেকে শুরু করে এমন কোন কাজ নেই যে তিনি করে দেন নাই । ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে বলা হয় ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির শহর। যদিও শহরটি দিন দিন তার ঐতিহ্য হারচ্ছিল। কিন্তু তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে বাংলাদেশে নতুনকরে তুলে ধরার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে গেছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন দর্শনীয় জায়গা সুন্দর করে ফুঁটিয়ে তুলে ধরার জন্য তার অবদান অনেক। যুব সমাজের অনেক প্রিয় ছিলেন তিনি। সবসময় হাসা-হাসিতে লিপ্ত থাকতেন যুবকদের সাথে। মানুষের অভিযোগ নেওয়ার জন্য জেলা পুলিশ সদর দপ্তরে তিনি প্রায়ই বিভিন্ন পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়ে মিটিং করতেন। প্রতিদিনই খোঁজ খবর নিতেন কোন সমস্যা আছে কি না। তিনিই ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে যোগদান করার পর জনগন জানতে পারে বাল্য বিবাহ কি জিনিস। বিয়ের কাজী থেকে শুরু করে বর কনের কেউ রাজী নাই বাল্য বিবাহে। মাদক নামক মরন ঔষধ কি কি ক্ষতি করে। মাদক সেবীরা প্রায়ই আতংকে থাকে। ইভটিজিং,এখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নেই বললেই চলে । ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন জায়গায় সিসিটিভি স্থাপন ও মনিটরিং ব্যবস্থায় কিছুদিন আগে আলোচিত সবার ভালবাসার মানুষ বিদায়ী এসপি মিজানুর রহমানের পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন এর অবদান অনেক। এছাড়াও ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে তিনি প্রায়ই যুবকদের নিয়ে বিভিন্ন কর্মশালায় অংশগ্রহন করতেন এবং সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গীদমনে নিয়েছেন নানামুখী পদক্ষেপ ,ছাত্র ,শিক্ষক ,অভিভাবকদের জঙ্গীবাদ, মাদক এর কুফল সর্ম্পকে করেছেন সচেতনতা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon