১৭ই জুলাই, ২০১৮ ইং, মঙ্গলবার, ২রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উদযাপিত


প্রকাশিত :০২.০৩.২০১৮, ৪:১৬ অপরাহ্ণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উদযাপিত

বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা পুলিশ লাইন গ্রিল সেডে র্যাব ও পুলিশের সহায়তায় পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উদযাপিত হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি হিসেবে ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন।

পুলিশ মেমোরিয়াল ডে-তে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসাইন তার বক্তব্যে বলেছেন, পুলিশে চাকরী করতে গিয়ে জীবন দান করা পৃথিবীতে ব্যতিক্রম। আর সেই ব্যতিক্রম কাজটিই করেছে বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা। তারা দেশের জন্য জীবন দিয়ে তা প্রমান করে দেখিয়েছে। আর যেই পরিবারের সদস্যরা চাকরীর জন্য জীবন দান করেছেন তাদের পরিবারের সদস্যরাই কেবল ধারনা করতে পারে অভিবাবকহীন পরিবার কত কষ্টের।

এসময় তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশ পুলিশ উতপ্রতভাবে জড়িত। পাক বাহিনী যখন ঢাকা এ্যটাক করেছিলেন তখন প্রথম প্রতিরোধ করেছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যরা। এসময় তিনি চাকরীকালীন সময়ে মৃত্যুবরণ করা সদস্যদের পরিবারের কথা উল্লেখ করে বলেন, শুধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া নয়, দেশের যে কোন জেলার চাকরীকালীন সময়ে মারা যাওয়া পুলিশ পরিবারের সদস্যদের কল্যানে এখন পুলিশ কাজ করে যাচ্ছেন।

জেলা পুলিশ লাইন গ্রিল সেডে পুলিশ মেমোরিয়াল ডে উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল রেজাউল হক, পিবিআইএর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হান্নান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নবীনগর সার্কেল চিত্ত রঞ্জন পাল, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সরাইল সার্কেল মনিরুজ্জামান ফকির, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) আবু সাইদ, র্যাব ১৪ সিপিসি-৩ ভৈরব ক্যাম্পের উপ-পরিচালক চন্দন দেবনাথ, জুনাইদ আফ্রাদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধূরী বাপ্পী ও মৃত্যুবরণ করা পুলিশ ইন্সপেক্টর ফারুকের ভাই মো. শাহাদাত আলী প্রমূখ।
আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন জেলায় কর্মকালীন সময়ে মৃত্যুবরণ করা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১৮ জন পুলিশ সদস্যের পরিবাকে আর্থিক সহায়তা ও সম্মাননা প্রদান করা হয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon