২৪শে মে, ২০১৮ ইং, বৃহস্পতিবার, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



অনুষ্ঠান নয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এসপি কে দেখতে এসেছি!


প্রকাশিত :২৮.০১.২০১৮, ৩:৩৪ অপরাহ্ণ

অনুষ্ঠান নয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এসপি কে দেখতে এসেছি!


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার। মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম বার, যিনি সদ্য অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতি হয়েছেন। অনেক জনপ্রিয় একজন মানুষ। তার নিজ গুনেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সবার হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এই পুলিশের ভক্ত ও সমর্থকের সংখ্যা এতটা ছাড়িয়ে গেছে যে, যে কোন রাজনৈতিক লোককে হারা মানাবে। তার ভাল ভাল কাজের জন্য পুরো ব্রাহ্মণবাড়িয়া নয়, সারা বাংলাদেশেই গুনকীর্তন চলছে। বাংলাদেশে পুলিশ বাহিনীর মুখ উজ্জ্বল করে দিয়েছে তার বিশেষ বিশেষ মানবতার কয়েকটি কাজ। যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কিছু বছর আগেও ছিল দাঙ্গা-হাঙ্গামা, চলছিল বর্বরত, অবাধ মাদক ব্যবসা, চরম বিশৃঙ্খলা। সে ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে নতুন রুপ দিয়েছেন মাত্র কিছুদিনের মধ্যেই। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সর্বসাধারনের কাছে তিনি একজন আশীর্বাদ। সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে এক গ্রাম্য এলাকায় শহীদদের গ্রাম হিসেবে খ্যাত ‘বিটঘর গ্রামে’ ৮০ জন শহীদ পরিবারের পার্শ্বে দাড়ান। যে ছোট গ্রামে স্বাধীনতার সময়, একদিনে খুব অল্প সময়ে ৮০ জন সাধারণ জনগনকে পাকিস্তানী বাহিনীরা হত্যা করেছিল। স্বাধীনতার ৪৬ বছরের মধ্যে কোন মানুষ স্মরণ করেনি ঐ এলাকার শহীদপরিবার দেরকে। অবশেষে গত ৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৭ ইং তারিখে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশ স্মরণ করে ঐ সব মানুষদের। তখন শহীদ পরিবার এর একজন বেলায়েত হোসেন (৭০) খুব উচ্চ স্বরে বলছিলেন অনুষ্ঠান নয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এসপিকে দেখতে এসেছি। আমার ৪ ভাইকে ঐ দিন পাকিস্তানি বাহিনীরা আমার মা-বাবার সামনে হত্যা হয়েছিল। এতদিন কেউ স্মরণ করেনি আমাদের। আমাদের চোখের অশ্রু কেউ দেখেনি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এসপি আমাদের অবশেষে স্মরণ করল, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এসপি আমাদের কষ্ট বুঝল।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon