১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং, বুধবার, ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অদ্বৈত মেলা-১৮ তিতাস পারেই অমর কথাশিল্পীকে স্মরণ


প্রকাশিত :৩১.১২.২০১৭, ১০:১০ অপরাহ্ণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অদ্বৈত মেলা-১৮ তিতাস পারেই অমর কথাশিল্পীকে স্মরণ

মনির হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

‘তিতাস একটি নদীর নাম’-বাংলা সাহিত্যের অমর কথাশিল্পী অদ্বৈত মল্লবর্মণের ১০৪তম জন্মদিনকে সামনে রেখের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিতাস পারেই শুরু হচ্ছে অদ্বৈত মেলা-১৮। ১৯১৪ সালের ১ জানুয়ারি লেখক এই জেলার (তৎকালীন কুমিল্লার মহকুমার) গোকর্ণঘাট গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। এ উপলক্ষে লেখকর জন্মভিটায় পাশেই তিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনে আগামী কাল থেকে শুরু হচ্ছে এই মেলা। পাঁচ বছরের ধারাবাহিকতায় জেলার ‘তিতাস আবৃত্তি সংগঠন’ আগামী ১-৩ জানুয়ারি শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে এ মেলার আয়োজন করবে। স্থানীয়দের মাঝে এই লোকজ মেলা হিসেবে গৃহীত এই মেলায় সহায়তা করেছে জেলা পুলিশ। লেখক অদ্বৈত মল্লবর্মণের জীবন ও সাহিত্যে গবেষণার ওপর প্রবর্তিত ‘অদ্বৈত সম্মাননা’ এ বছর পাচ্ছেন অদ্বৈত গবেষক অধ্যাপক সাহাবউদ্দিন বাদল।

মেলার আয়োজকরা জানান, আগামীকাল বিকাল ৪টায় পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান পিপিএম (বার) সভাপতিত্বে মেলার উদ্বোধন করবেন বিশিষ্ট লেখক ও মুক্তিযোদ্ধা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি। এতে বিশেষ অতিথি থাকবেন পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবীর, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, মাছরাঙা টিভির বার্তা সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ মুতাসিম বিল্লাহ, প্রেস ক্লাব সভাপতি খ আ ম রশিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ সাংগঠনিক সম্পাদক কাজি মাহতাব। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পর্বে প্রধান অতিথি থাকবেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (গ্রেড-১) প্রফেসর ফাহিমা খাতুন, তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সম্পাদক হাসান আরিফ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আলমগীর কবীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন।

এছাড়া ভারতের ত্রিপুরা থেকে মেলায় অংশ নেবেন গল্পকার পারিজাত দত্ত, সাংস্কৃতিক সংগঠক অমিত ভৌমিক, বাচিকশিল্পি স্মীতা ভট্টাচার্য, শাওলী রায়, নিলোৎপল গোস্বামী, অনিবার্ণ চক্রবর্তী।

তিতাস আবৃত্তি সংগঠনের সহকারী পরিচালক বাছির দুলাল বলেন, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অমর কথাশিল্পী ও তিতাস জনপদের শ্রেষ্ঠ সন্তান অদ্বৈত মল্লবর্মণকে স্মরণ করে গত ৫ বছর ধরে আমরা ভারত-বাংলাদেশের বিশিষ্টজনদের উপস্থিতিতে অদ্বৈতমেলার আয়োজন করে আসছি। ইতিমধ্যেই মেলার সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। অদ্বৈতমেলা মূলত লোকজ মেলায় পরিণত হয়।

তিনদিনের কর্মসূচীর মধ্যে আছে গোকর্ণঘাটে জন্মভিটায় অদ্বৈত ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ, উদ্ধোধন, কথাশিল্পি জ্যোতিরিন্দ্র নন্দী শ্রদ্ধা নিবেদন, কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, একক ও দলীয় আবৃত্তি, লোকগান, লোকনাচ, পুরস্কার বিতরণ, সম্মাননা প্রদান ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা। মেলায় লোকজ পণ্য সামগ্রী, বইসহ বিভিন্ন স্টল বসানো হবে। মাত্র ৩৭ বছর বয়সে যক্ষ্মা রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৬ এপ্রিল ১৯৫১, কলকাতার নারকেলডাঙ্গার ষষ্ঠীপাড়ার নিজ বাড়িতে অদ্বৈত মল্লবর্মণ মৃত্যুবরণ করেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon