২৩শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, সোমবার, ৮ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ



অটিস্টিক শিশুদের জীবনমান উন্নত করতে স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশ নিয়ে এসেছে একটি নতুন অ্যাপ


প্রকাশিত :০১.১১.২০১৬, ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ

screenshot_2016-11-01-12-27-26-1অটিস্টিক শিশুদের জীবনমান উন্নত করতে স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশ নিয়ে এসেছে একটি নতুন অ্যাপ। নাম ‘লুক লুক এট মি’। এটি অটিস্টিক শিশুদের যোগাযোগের দক্ষতা বাড়াতে সহায়তা করাসহ চারপাশের মানুষের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক আরও গভীর করবে।

রবিবার স্যামসাং ও সূচনা ফাউন্ডেশন এক অনুষ্ঠানে মাধ্যমে এ অ্যাপ উদ্বোধন করে। এটি কোরিয়া এবং কানাডায় সফলতা পাওয়ার পর বাংলাদেশ উন্মোচন করা হলো।

এই অ্যাপ শিশুদের সাহায্য করবে অন্যের সাথে দৃষ্টি সংযোগ করা এবং নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করার ক্ষেত্রে। এটি প্রযুক্তি ও মানবতার এক অসাধারণ সমন্বয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন সূচনা ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যাডভাইসারি কমিটি অন অটিজম অ্যান্ড নিউরো ডেভেলপমেন্টাল ডিসর্ডারস (এনএসিএএনডি)-এর চেয়ারপারসন সায়মা ওয়াজেদ হোসেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত আন সিয়ং-ডু, স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সেংওয়ান ইউন, স্যামসাং রিসার্চ ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ওয়ানমো কু সহ স্যামসাং ও সূচনা ফাউন্ডেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রযুক্তির সহায়তায় অটিস্টিক শিশুদের যোগাযোগের দক্ষতা বাড়াতে যৌথভাবে কাজ করছে স্যামসাং ও সূচনা ফাউন্ডেশন।

অ্যাপটি যেভাবে কাজ করে

এই মোবাইল অ্যাপটি অটিস্টিক শিশুদের অন্যের সঙ্গে দৃষ্টি সংযোগ ও নিজের অনুভূতি প্রকাশের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ প্রদান করে। সাধারণত শিশুদের মাঝে ক্যামেরার প্রতি যে আগ্রহ দেখা যায় তা কাজে লাগিয়ে এই অ্যাপ শিশুদের মনোযোগ আকর্ষণ করবে। এটা ব্যবহারের মাধ্যমে শিশুরা অন্য ব্যক্তির মনোভাব বুঝতে পারবে, বিভিন্ন চেহারা মনে রাখতে পারবে এবং বিভিন্ন মনোভাব ও ভঙ্গি অনুকরণ করে নিজেদের ছবি তুলতে পারবে। সাতটি আনন্দময় ও ইন্টারেক্টিভ মিশন শিশুদের মনোযোগ ধরে রাখবে, উপরন্তু পয়েন্ট সিস্টেম, বিভিন্ন পুরস্কার এবং অডিও/ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট তাদের আগ্রহ ধরে রাখতে সাহায্য করবে। এই অ্যাপ-এর মিশনগুলোতে শিশুর পাশাপাশি মা-বাবা অথবা ট্রেইনারের অংশগ্রহণও থাকতে হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Designed By Linckon